Tuesday, December 7, 2021
Google search engine
Homeবিদেশের খবরবিশ্বের টপ 6 জন ব্যক্তির সিকিউরিটি ব্যবস্থা

বিশ্বের টপ 6 জন ব্যক্তির সিকিউরিটি ব্যবস্থা

        

বন্ধুরা আপনাদের মনে হতে পারে যে সেলিব্রেটি হওয়া কতইনা মজার ব্যাপার তাইনা। অর্থ-বিত্ত খ্যাতি প্রভাব-প্রতিপত্তি লোকজনের ভিড় আরো কত কি। কিন্তু এর উল্টো দিকও রয়েছে। ব্যক্তি জীবনে তাদের প্রচণ্ড চাপ, ভয়ানক সহ নানান ধরনের ধকল তো রয়েছে, সেই সাথে রয়েছে, তাদের সম্পদ রক্ষার দুশ্চিন্তা, আর প্রাননাশের অনবরত হুমকি ব্ল্যাকমেল। এই জন্য প্রায় সব সেলিব্রেটি নিজের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেন কিন্তু কেউ কেউ নিজের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে এত বাড়াবাড়ি করেন যে আপনি শুনলে অবাক হয়ে যাবেন।
এই পোষ্টের মাধ্যমে এমন কয়েকজনের কোথা আপনাদের জানাবো।

1) কিম কার্দেশিয়ান:
          একসময় এই বিখ্যাত সেলিব্রেটি পরিবার কোন বডিগার্ড, নিরাপত্তারক্ষী ছাড়াই সাধারণ মানুষের মতো চলাফেরা করতেন। কিন্তু কিম 2016 সালে এক দুর্ঘটনার শিকার হন। একদিন ডাকাতরা এসে তার 10 মিলিয়ন ডলার মূল্যের জুয়েলারি ছিনিয়ে নিয়ে চলে যান। এরপর তিনি সিদ্ধান্ত নেন, যেন এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে। তাই বছরে 7 মিলিয়ন ডলার (59 কোটি 45 লাখ 55 হাজার 500 টাকা) খরচা করে দিনরাত 24 ঘণ্টা নিরাপত্তা নিশ্চিত করেন। ক্যালিফোর্নিয়ায় তার যে মেনশন রয়েছে। তার প্রতিটি কর্ণারে মোতায়েন রয়েছে বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত সিকিউরিটি গার্ড। কিম এতেও সন্তুষ্ট নন, যাতে গুলি করলে বা বোমা মারলে ওর কোনো ক্ষতি না হয় এমন এন্টি ব্লাস্ট কার তিনি ব্যবহার করেন এবং ঘুমাতে যান দরজার পিছনে চারজন বডিগার্ড রেখে।

2) প্রিন্স হ্যারি এবং মেগান মার্কেল:
          প্রিন্স হ্যারির ক্ষেত্রে ব্যাপারটি সম্পূর্ণ উল্টো। প্রিন্স হেরি হলেন রানী এলিজাবেথের দৌহিত্র এবং প্রিন্স চার্লসের কনিষ্ঠ পুত্র। যদিও ইংল্যান্ডের এই রাজপরিবার অত্যন্ত সুরক্ষিত জীবনযাপন করেন। কারণ এই পরিবারের সদস্যদের অনেক অনুষ্ঠানে এবং জনসমাগমে হাজির হতে হয়। 2018 সালের 19 শে মে বিয়ে হয় প্রিন্স হেরির সাথে মেগান মার্কেলের। কিন্তু আপনি কি জানেন কি ধরনের নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল এই বিয়েতে।    বিয়ের অনুষ্ঠান চলাকালীন প্রায় 3000 আর্ম অফিসার নিয়োগ ছিলেন তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য। কেউ কেউ ছদ্মবেশে, কেউ আবার ছাদে এবং প্রাসাদের চারিপাশে নিয়োগ ছিলেন। এই বিয়েতে নিরাপত্তা ব্যবস্থায় মোট ব্যয় হয়েছিল প্রায় 30 মিলিয়ন পাউন্ড। ভারতীয় মুদ্রায় 330 কোটি টাকা। শুধু তাই না হ্যারি এবং মেগান মার্কেলের নিরাপত্তার জন্য 6.7 মিলিয়ন ডলার। তবে এই বিপুল পরিমাণ অর্থ আসে জনগণের টেক্স থেকে। তবে সম্প্রতি হেরি দম্পতি পরিবার থেকে আলাদা হয়ে গেছেন। ফলে তাদের নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ রাজপরিবার থেকে আর দেওয়া হবে না। এত বিপুল পরিমাণ অর্থ তারা কোথা থেকে জোগাড় করবেন সেটাই সবার আগ্রহের বিষয়।

3) মেসি:
        ফুটবলের এই সময়ের সর্বশ্রেষ্ঠ খ্যাতনামা খেলোয়াড় লিওনেল মেসি। এই আর্জেন্টিনীয় তারকা সারাবিশ্বে খুবই জনপ্রিয় খেলোয়াড়। তবে তার যত বেশি ভক্ত রয়েছে শত্রুও কিন্তু কম নেই। গত গ্রীষ্মে এক আক্রমণের শিকার হন। সৌভাগ্যবশত তার দেহরক্ষীরা দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছিলেন। এর আগে মেসির আরেকটি দুর্ঘটনা ঘটেছিল 2016 সালে, ডাবলিনে তিনি যখন ফুটবল মাঠ ছাড়ছিলেন, এক ভক্ত তাকে জড়িয়ে ধরার জন্য লাফ দিয়ে তার সামনে চলে আসে। এক্ষেত্রেও তার দেহরক্ষীরা দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছিলেন। কিন্তু এই ব্যক্তি যদি ভক্ত না হয় তার শত্রু হতো তাহলে পরিস্থিতি কোন পর্যায়ে পৌঁছাত। এইজন্য ফুটবল এসোসিয়েশন তার নিরাপত্তার জন্য অতিরিক্ত অর্থ বরাদ্দ করেন। তবে মেসি নিজেই এই ব্যয় ভার এর দায়িত্ব নেন। তিনি চলাফেরা করার সময় দু’জন নির্ভরযোগ্য দেহরক্ষী নিয়ে চলেন। তবে মেসি নিরাপত্তা ব্যয় কত তা খাতাপত্রে ওপ্রকাশিত রয়েছে।


4) ফ্লয়েড মেওয়েদার:
         আপনি যদি নিউ ইয়র্কে যান, তাহলে হয়তো দেখতে পাবেন, নিউ ইয়র্কের রাস্তায় বিশালদেহী পান্ডা ধরনের কিছু লোক রাস্তায় চলাফেরা করছে। আপনার মনে হতে পারে এরা কোন একটা গ্র্যান্গ র সদস্য। কিন্তু না, এরা হলেন ফ্লয়েড মেওয়েদারের ব্যক্তিগত দেহরক্ষী। ফ্লয়েড নিজেই এখন সর্বশ্রেষ্ঠ বক্সার। সাধারণ যে কাউকেই এক ঘুষিতে কুপোকাত করে দিতে পারেন। কিন্তু তবুও তিনি নিজেকে নিরাপত্তা দিতে এই কড়া ব্যবস্থা বেছে নিয়েছেন, কেননা একবার এক বন্দুকধারী তাকে লক্ষ্য করে বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি চালায়। তার দেহরক্ষীর পায়ে আঘাত পেলেও তিনি সে যাত্রায় বেঁচে গিয়েছিলেন.

5) রিয়ানা:
       পার্টি গার্ল হিসেবে সারা বিশ্বে পরিচিত রিয়ানা। পার্টি গার্ল হবার জন্য ব্যক্তিগতভাবে তার জন্য দেহরক্ষী থাকা খুবই জরুরী। তাই রিয়ানার সাথে সব সময় দুইজন দেহরক্ষী থাকেন। কিন্তু তিনি যখন কোন ইভেন্টে যান সঙ্গে রাখেন পাঁচজন দেহরক্ষী। কিন্তু রিয়ানের দেহরক্ষীদের অন্য কিছু দায়িত্ব থাকে, তিনি যখন বরফে হাটতে পারেননা, ভিড়ের মধ্যে দূরের কিছু দেখতে পান না তখন তার দেহরক্ষীদের ঘাড়ে চেপে উঠেন। গতবছর রিয়ানার বার্ষিক আয় ছিল 600 মিলিয়ন ডলার.

6) মার্ক জুকারবার্গ:
         ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা হলেন মার্ক জুকারবার্গ। এই যুগের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ধনী। তার সম্পদের পরিমাণ 18 বিলিয়ন মার্কিন ডলার। তিনি বিশ্বের দশম ধনী ব্যক্তি। ব্যক্তিগত নিরাপত্তায় তার প্রতিদিনের ব্যয় 20 হাজার ডলার। সারাবিশ্বে নানা প্রান্তে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে জুকারবার্গের বিলাসবহুল মেনশন। এই মেনশন গুলো দিন রাত 24 ঘন্টা নিরাপত্তারক্ষীর আওতায় থাকে। তার ব্যক্তিগত নিরাপত্তার জন্য রয়েছেন 16 জন সশস্ত্র নিরাপত্তা রক্ষী.

Enable GingerCannot connect to Ginger Check your internet connection
or reload the browser
Disable in this text fieldEditEdit in GingerEdit in Ginger×

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments